তথ্য অধিকার আইন, ২০০৯ বিষয়ে ৬২টি জেলায় এবং ১৮টি উপজেলায় জনঅবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে এবং সরকারী ও বেসরকারী পর্যায়ে ৪৪টি জেলায় এবং ১০টি উপজেলায় সর্বমোট ৮১৪৯ জন দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে।

আসন্ন কর্মসূচী

পরবর্তি শুনানীর তারিখ: ২৯ ও ৩০ এপ্রিল, ২০১৪


সভা-প্রশিক্ষণঃ
লালমনিরহাট জেলাসদর ও সদর উপজেলায় যথাক্রমে ২১ ও ২২ এপ্রিল, ২০১৪ তথ্য অধিকারসংক্রান্ত ২টি প্রশিক্ষণ কর্মশালা


২২ এপ্রিল, ২০১৪ তারিখে জনপ্রাশসন মন্ত্রনালয়ের সম্মেলকক্ষে ''জনপ্রাশসন মন্ত্রনালয়ের তথ্য অবমুক্তকরণ নীতিমালা প্রণয়নসংক্রান্ত'' সভা

প্রথম পাতা তথ্য কমিশন প্রধান তথ্য কমিশনার
তথ্য অধিকার

তথ্য অধিকার জগতে প্রবেশের লক্ষ্যে তথ্য কমিশনের ওয়েবসাইট পরিদর্শনের জন্য আপনাকে স্বাগতম। তথ্য অধিকার আইন, ২০০৯ এর মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে জনগণের ক্ষমতায়ন এবং জনগণের ক্ষমতায়নের জন্য প্রতিটি সরকারী, স্বায়ত্বশাসিত বা সংবিধিবদ্ধ সংস্থা, সরকারী বা বিদেশী অর্থায়নে পরিচালিত সকল বেসরকারী সংস্থা এবং সরকারী কর্মকান্ড পরিচালনার দায়িত্বপ্রাপ্ত সকল বেসরকারী সংস্থার স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে দুর্নীতি হ্রাস এবং সুশাসন প্রতিষ্ঠা।

দেশের জনগণ যাতে তথ্য সমৃদ্ধ হয়ে এ সকল প্রতিষ্ঠানের উপর নজর রাখতে পারে এবং এ সকল প্রতিষ্ঠান যেন তাঁদের নিকট দায়বদ্ধ থাকে তার ব্যবস্থা গ্রহণ। এই আইনটির সুষ্ঠু প্রয়োগের মাধ্যমে জনগণ এ অধিকার পাবেন বলে তথ্য কমিশন দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করে। এ ওয়েবসাইট পরিদর্শনের জন্য আপনাকে অভিনন্দন। বিশেষ দ্রষ্টব্য যে, প্রচলিত অন্য কোন আইনের তথ্য প্রদান সংক্রান্ত বিধানাবলী এই আইনের বিধানাবলী দ্বারা ক্ষুণ্ণ হবে না এবং তথ্য প্রদানে বাধা সংক্রান্ত বিধানাবলী এই আইনের বিধানাবলীর সাথে সাংঘর্ষিক হলে, এই আইনের বিধানাবলী প্রাধান্য পাবে (তথ্য অধিকার আইন, ২০০৯- ধারা-৩)।

 

ছবি গ্যালারি

Video Gallery

 
RTI movie